HomeCareerকিভাবে ইংরেজি শিখব ? ইংরেজি শেখার সেরা উপায়:

কিভাবে ইংরেজি শিখব ? ইংরেজি শেখার সেরা উপায়:

কিভাবে ইংরেজি শিখব ? ইংরেজি শেখার সেরা উপায়:

কিভাবে ইংরেজি শিখব ? ইংরেজি শেখার সেরা উপায়: বাংলা আমাদের মাতৃভাষা হলেও ইংরেজি আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরত্বপূর্ণ। আমরা জানি যে ইংরেজি হচ্ছে একমাত্র আন্তর্জাতিক ভাষা। বিশ্বের যেকোন প্রান্তের মানুষের সাথে কথা বলতে হলে আপনাকে ইংরেজি জানতে হবে। বিশেষ করে উন্নত দেশগুলোতে তাদের মাতৃভাষাই ইংরেজি যেমনঃ আমেরিকা, কানাডা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স ইত্যাদি।

এসব দেশের কোন মানুষের সাথে যখন কথা বলার প্রয়োজন হবে তখন অবশ্যই আপনাকে ইংরেজি জানতে হবে। না হলে তাদের সাথে কথা বলা সম্ভব হবে না। এতক্ষণে নিশ্চই বুঝে গেছেন ইংরেজি শিখার গুরুত্ব কতটুকু। আমরা জানি, চারটি মানদণ্ডের ওপর ইংরেজি ভাষার দক্ষতা নির্ভর করে। এগুলো হল শোনা, বলা, পড়া ও লেখা। আমাদের শিক্ষার্থীদের মাঝে এগুলোর চর্চা কম। তাই আমরা দেখছি এদেশের প্রাথমিক বা মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ইংরেজির ভিত অত্যন্ত দুর্বল।

একটা কথা পরিষ্কার, নিজেদের আঞ্চলিক সীমার গণ্ডি পেরিয়ে একটু বাইরে গেলেই মত বিনিময়ের প্রধান মাধ্যম হিসেবে ইংরেজিকেই ব্যবহার করা হয়। সেক্ষেত্রে, বিকল্প অন্য কোন ভাষা তেমন একটা পাত্তা পায় না। কারণ ইংরেজি ভাষাটাকে আন্তর্জাতিক মাধ্যম বলা যেতে পারে। সর্বজনীন ভাষা বললেও অত্যুক্তি করা হবে না। আর ঠিক সেই কারণেই ইংরাজি ভাষা শেখা বর্তমান সমাজে এতটা জরুরী।

ইংরেজি আন্তর্জাতিক ভাষা। আধুনিক বিশ্বে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হলো ইংরেজি। ইংরেজি বিষয় নিয়ে আমাদের সকলের মধ্যে কমবেশি আতংক কাজ করে। ছাত্র, শিক্ষক, এমনকি অভিভাবক মহলেও। কিন্তু আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে ইংরেজি ভাষার গুরুত্ব এবং প্রাত্যহিক জীবনে ইংরেজি ভাষার ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে প্লে-নার্সারি শ্রেণি এবং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণি থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনে ইংরেজি ভাষা শিক্ষা গ্রহণ অপরিহার্য।

শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অর্জনে নয়, ইংরেজি শিক্ষা আপনার কর্মজীবনে সফলতা বয়ে আনে আপনি যখন কোন আধুনিক কর্মক্ষেত্রে যোগদান করবেন তখন প্রথমেই ইন্টারভিউ থেকে শুরু করে সবকিছুতেই আপনাকে ইংরেজি বলতে হবে। হয়তো সবার সাথে প্রতিনিয়ত ইংরেজিতে কথা বলা একটু কঠিন কাজ, কিন্তু এটিই নিয়ম। কর্মক্ষেত্রে আপনার সফলতা কেউ ধরে রাখতে পারবে না, যদি আপনি ভালমত ইংরেজি জেনে থাকেন। তাই বিশেষ করে নিজের কর্মজীবনকে সফলতার উচ্চে নিতে হলে ইংরেজি জানা খুব জরুরী।

ইংরেজি শিক্ষা আপনাকে আরও বেশি শিখতে সাহায্য করে আপনি ভালোভাবেই ইংরেজি জানেন। কিন্তু আপনি যখন ইংরজিতে কোন একটি বিষয় নিয়ে মস্তিষ্ক খাটাবেন তখন দেখবেন ইংরেজি জানা থাকা সত্ত্বেও আপনার আরও অনেক কিছু জানতে ও শিখতে ইচ্ছে করবে। ধরুন আপনি গল্পের বই পড়তে খুব ভালবাসেন ও গল্পের বই গুলো আপনাকে আরও বেশি করে গল্পের বই পড়তে আগ্রহী করে তোলে, ইংরেজি শিক্ষাটাও ঠিক সেইরকম।

কিভাবে ইংরেজি শেখা যায় ?

আমাদের দেশের মত যাদের মাতৃভাষা বাংলা (কিংবা অন্য কিছু) তাদেরকে অবশ্যই কিছুটা নিয়ম মেনে আলাদাভাবে ইংরেজি শিখে নিতে হয়। তাই আমাদের দেশের পাঠ্য বইয়ের সাথে ইংরেজি বিষয়ের উপর ও একটি বই দেওয়া হয় । কিন্তু আমাদের সেই বই পড়ে আমরা ‍শুধু ইংরেজি ব্যাকরণই শিখতে পারি আসল উদ্দেশ্য যেটা সেই ভাষা আর শিখা হয় না।

তাই আমি আপনাদেরকে খুবই সহজ কিছু উপায় বলবো যা অনুসরণ করলে আপনারা যেমন ভাষা শিখতে পারবেন তেমন সাথে ব্যাকরণ ও জেনে যাবেন।মনে রাখবেন ভাষা জানলে ব্যাকরণ জানতে খুব বেশি সময় লাগে না। আর অমাদের দেশের পড়ানো হয় উল্টটা যে ব্যাকরণ এর নিয়ম জানলে ভাষার কোন ব্যপার না । তাহলে আমি তাদেরকে বলবো একটা মানুষ ১০ বছর ইংলিশ ব্যাকরণের নিয়ম পড়ে যতটুকু না ইংরেজিতে পারদর্শি হতে পারবে মাত্র দুই বছর কোন ইংরেজ লোকের সাথে থাকলে তারচেয়ে অনেকগুন বেশি ইংরেজি বলতে পারবে। এর জন্য তাকে একটি ব্যকরণের নিয়ম ও জানতে হবে না। আশা করি বুঝতে পেরেছেন যে ব্যাকরণের নিয়ম জানার চেয়ে ভাষা জানাটাই আসল উদ্দেশ্য।

নিয়ম না জেনেও ভাষা জানা যায় কিন্তু নিয়ম জেনেও অনেক সময় ভাষা জানা সম্ভব হয় না। তাই ব্যকরণের নিয়ম জানার আগে সেই ভাষার শব্দার্থ জেনে নিয়ে সেই ভাষা চর্চা করা বেশি উত্তম। আপনি যদি একটা ভাষার ৫০-৭০% শব্দার্থ জেনে নিতে পারেন তারপর যদি ব্যাকরণের নিয়ম একবার একটু চোখ বুলিয়ে নেন তাহলেই দেখবেন আপনি অল্প সময়ের মধ্যেই সেই ভাষায় পারদর্শি হয়ে যাবেন। এর জন্য আপনাকে প্রচুর শব্দার্থ জানতে হবে। আমরা যেহেতু ইংরেজি ভাষা শিখবো তাই ইংরেজি ভাষার অনেক শব্দার্থ জানতে হবে। শব্দার্থ জানার জন্য অনেক উপায় রয়েছে যেমন ইংলিশ টু বাংলা ডিকশোনারী কিংবা পাঠ্য বইয়ের বিভিন্ন আর্টিকেল থেকে ও শব্দার্থ জানা যায় । কিন্তু এই সব গুলো বিষয়ই খুব বিরক্তকর এগুলো করতে বা পড়তে কারোই ভালো লাগে না যার ফলে আমরা ইংরেজি শেখার আগ্রহ প্রথমেই হারিয়ে ফেলি। তাই এই ব্যাপার গুলোতে আনন্দ নিয়ে আসতে হবে। যাতে একই সাথে আনন্দ ও পাওয়া যায় এবং সাথে সাথে শেখাও হয়। তাই এমনি একটি আনন্দময় উপায় আমি আপনাকে বলবো। এর জন্য সবার প্রথমে আপনাকে আপনার পছন্দের একটি বিষয় নিধারণ করতে হবে যেটি পড়তে বা শুনতে আপনার ভালোলাগে । যেমনঃ খেলার খবর, বিনোদন, গল্প ইত্যাদি।

ইংরেজি শিখার সহজ উপায়:

১) একটি সাবলীল ভোকাবুলারি তালিকা তৈরি করুনঃ ইংরেজি ভাষায় প্রায় ৬,০০,০০০ শব্দ রয়েছে। আমি বলছি না সব শব্দ মুখস্ত করতে হবে। ইংরেজি ভোকাবুলারি শিখতে হলে ৬,০০,০০০ কোনো স্তুপের দরকার নেই। আপনি শব্দতালিকা, লেসন এবং বিভিন্ন অনুশীলনের মত ইংরেজি ভোকাবুলারির উৎসগুলো ব্যবহার করে দৈনন্দিন জীবনে যে শব্দগুলো আপনার দরকার সেগুলো শিখতে হবে। প্রতিদিন আপনি যে শব্দগুলো শিখবেন সেগুলো একটি ডায়েরিতে লিখে রাখুন। যখন আপনি কোনো একটি শব্দ শিখবেন তখন সেটি জোরে জোরে উচ্চারণ করুন।

২) একটি দেখা করার বা কথোপকথন দলে যোগ দিনঃ অধিকাংশ সময় লজ্জিত হবার ভয় আমাদের নতুন শেখা ভাষাগুলো বাস্তব জীবনে ব্যবহার করাকে বাধা দেয়। একই সময়ে বাস্তব জীবনের ঘটনাগুলোই অধিকাংশ সময় শেখার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হয়ে দাড়ায় কারণ আপনার শেখা নতুন সব বাক্য আপনার জীবনের কোন না কোন ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকে। লজ্জা পাবার ভয় এড়ানোর একমাত্র উপায় হল অনুশীলন। আপনি যদি একটি কথোপকথন দলে যোগ দেন তাহলে আপনি এমন মানুষদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন যারা আপনার মতই ইংরেজি শিখছে এবং ভুল করছে এবং তা থেকে শিক্ষা নিচ্ছে।

৩) নিয়মিতভাবে ইংরেজি বই পড়া শুরু করুনঃ

কেবল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পোস্ট বা অনলাইনের নিউজ আর্টিকেল নয় – প্রকৃত বই পড়ার জন্য সময় দিন। একটি ইংরেজি বইয়ের পুরোটা পড়ে ফেলা আপনার সহনশীলতা বৃদ্ধি করবে – অন্য কথায় বলতে গেলে, এরপর আপনি যখন ইংরেজিতে কোন কিছু পড়ার চেষ্টা করবেন, আপনি আর সহজে ভয় পাবেন না বা ক্লান্ত হয়ে পড়বেন না। এটি বিশেষ করে উপকারী যদি আপনি ইংরেজি ভাষায় পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে থাকেন। আপনি মজার এবং আগ্রহ উদ্দীপক উপকরণ পড়ার মাধ্যমে নিজেকে প্রণোদনা দিতে পারেন যার ফলে আপনার বই পড়ার আগ্রহ আরও বেড়ে যাবে। পড়ার সময় অজানা শব্দগুলোর নিচে দাগ দিয়ে রেখে এবং একটি শব্দ তালিকা তৈরি করার মাধ্যমে আপনি আপনার শিক্ষাকে আরও জোরদার করতে পারেন।

ইংরেজি গল্পের বই যেমনঃ

1.My Sister, the Serial Killer by Oyinkan Braithwaite.
2.The Catcher In The Rye by J.D Salinger.
3.Love in A Cold Climate by Nancy Mitford.
4.Delete At Your Peril by Bob Servant.
5.The Timewaster Letters by Robin Cooper.
6.The Bottle Factory Outing by Beryl Bainbridge.
7.Based on a True Story by Norm Macdonald.
8.The Secret Diary of Adrian Mole, Aged 13 ¾ by Sue Townsend.
9.A Confederacy of Dunces by John Kennedy Toole.
10.Vile Bodies by Evelyn Waugh.

এখান থেকে যে কোন ‍একটি কিংবা আপনার অন্য কোনো পছন্দের গল্পের বই থাকলে সেটা কে বেছে নিতে পারেন।তারপর সেই বিষয়টা লিখে গুগলে সার্চ দিন।

৪) একটি জাদুঘর পরিদর্শন করুনঃ নিজেকে ইংরেজি বিবরণগুলি পড়ার জন্য চ্যালেঞ্জ করুন। এগুলো প্রায়ই সোজা-সাপটাভাবে লেখা হয়ে থাকে তাই ইংরেজি শিক্ষার্থীদের জন্য বিবরণীগুলি বেশ ভালো শিক্ষা উপকরণ। পাশাপাশি আপনার বোধগম্যতাকে সহজ করার জন্য এতে থাকবে ছবি এবং বাস্তব উদাহরণ। আপনি কত বেশি বুঝতে পারছেন তা দেখে আপনি নিজেই অবাক হয়ে যাবেন।

৫) বোর্ড গেম খেলাঃ বোর্ড গেমে এমন পরিবেশ তৈরি হয় যাতে আপনি বিশেষ ভোকাবুলারি এবং গ্রামারের দিকে লক্ষ্য রাখতে পারবেন। গেমে এমন সব মূল বাক্য রয়েছে যাদের পুরো গেম জুড়েই ব্যবহার করতে হয় যা আপনাকে গুরুত্বপূর্ণ ইংরেজি শব্দ এবং বাক্য শেখাতে পারে

ইংরেজি গ্রামার কিভাবে শিখব ?

৬) ইংরেজি শেখার অ্যাপস্ঃ

হ্যালো ইংলিশ (Hello English): Hello English Apps কে ইংরেজি শেখার জন্য আমি লিস্টের প্রথমে রাখবো। ভারতীয় উপমহাদেশের জন্য এই অ্যাপটি সবচেয়ে ভালো একটি apps । Hello English Apps ইংরেজিতে গ্রামার শেখা এবং কথা বলা শেখার জন্য খুব কার্যকরী একটি apps। এটা সাধারণ ব্যবহারকারীদের কথা চিন্তা করে তৈরি করা হয়েছে। এটা beginner এবং advance উভয় ব্যবহারকারীদেরই কাজে আসবে।

এতে reading, translation, spelling, grammar ও ভোকাবুলারির উপর ভিত্তি করে অনেক লেসন রয়েছে। যা তাৎক্ষণিক ফলাফল প্রদর্শন করে এবং গ্রামারের অনেক সহায়ক টিপস প্রদান করে থাকে। এতে ইংরেজি শেখার জন্য যে কোনো বিষয় নিয়ে শিক্ষকদের সাথে আলোচনা করা যায় এবং যে কোন সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়। শিক্ষকগণ গ্রামার এবং অনুবাদ বিষয়ক সহায়তা করে থাকেন।

এতে conversation practice game রয়েছে, যা আমরা প্রতিদিনের কথোপকথনে যেসব বাক্য ব্যবহার করে থাকি তা অনুশীলন করার সুযোগ রয়েছে। যাকিনা সহজেই ইংরেজী কথোপকথনের দুর্বলতা কাটিয়ে তুলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।এতে 10,000 শব্দ দ্বারা গঠিত dictionary রয়েছে যা আমাদের নতুন শব্দ শিখতে এবং উচ্চারণ শিখতে সহায়তা করে থাকে। এই apps ব্যবহারকারীদের অর্জিত পয়েন্টের তালিকা প্রকাশ করে। যেটা কিনা নিজ ভাষায় বিভিন্ন ব্যবহারকারীদের অবস্থান প্রদর্শন করে। এতে যে কেউ নিজের ইংরেজি চর্চার অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারে এবং নিজেকে আরো তৎপর করতে পারে।

Duolingo – Learn languages For Free: এই অ্যাপস টি ইংরেজি শেখার জন্য basic level এর একটি অ্যাপস। এতে মজার কিছু গেমস রয়েছে, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা speaking, writing, reading, listening এ দক্ষ হয়ে উঠতে পারে। ‌‌‍‌এই অ্যাপসটি ব্যবহারকারীদের কথা চিন্তা করে খুব সহজ ভাবে তৈরি করা হয়েছে। এতে প্রশ্ন উত্তর এবং অনুশীলনীর মাধ্যমে vocabulary এবং grammar এর দক্ষতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এই অ্যাপসটি 2013-14 সালে গুগল এডিটরস চয়েজ এবং best of the best নির্বাচিত হয়েছিল। ইংরেজি শেখার অ্যাপস্ হিসেবে আমি মনে করি Doulingo অসাধারণ।

Memrise: Learn Languages Free: এই অ্যাপসটিতে মূলত সহজভাবে vocabulary মনে রাখার কৌশল দেখানো হয়েছে। কিভাবে সহজে vocabulary মনে রাখা যায়, এই অ্যাপসটি মূলত সেই বিষয়ের প্রতি অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কারো যদি ভোকাবুলারির দুর্বলতা থাকে তবে এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন আশা করি উপকার পাবেন।

Learn English with Babbel: এই অ্যাপসটির মাধ্যমে ইংরেজিতে কথোপকথন দক্ষতা সহজেই বৃদ্ধি করা যাবে। তাছাড়া ইহা vocabulary শেখার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অ্যাপস। ইংরেজি বোঝার জন্য এতে ইংরেজি phrase কেউ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। এতে গুরুত্বপূর্ণ চারটি বৈশিষ্ট্য রয়েছে যেগুলো হচ্ছে শব্দ চিহ্নিতকরণ, ছবি চিহ্নিতকরণ, উচ্চারণ, শূন্যস্থান পূরণ।

LearnEnglish Grammar: এই অ্যাপসটি মূলত গ্রামার শেখার জন্যই তৈরি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে আপনি আপনার গ্রামার দক্ষতাকে সহজেই বৃদ্ধি করতে পারেন। এটা ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তৃক তৈরিকৃত একটি অ্যাপস। এতে ব্যবহারকারীদের দক্ষতা বিবেচনায় চারটি ধাপ রয়েছে। গ্রামারের দক্ষতা বৃদ্ধির সাথে সাথে ব্যবহারকারী উপরের ধাপে পদার্পণ করে থাকে। এতে অনুশীলনের জন্য এক হাজারের মত প্রশ্ন রয়েছে। এর মাধ্যমে grammar চর্চা করা যাবে, সেই সাথে পরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে।

Root Words: কোন শব্দ শেখার জন্য সেই শব্দের উৎপত্তি কোথা থেকে তা জানা জরুরি। সেই জন্য শব্দের root word জানা খুব জরুরী। এই অ্যাপসটির মাধ্যমে কোন ইংরেজি শব্দের root word জানতে পারবেন। এতে root word জানার জন্য flash card এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে পরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে, যা শব্দ শেখার জন্য অনেক সহায়ক।

৭) প্রতিদিন শেখোঃ সবাই নতুন বছর প্রথম কয়দিন বেশ আগ্রহ নিয়ে ইংরেজি শেখা নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে, তারপর তাদের আগ্রহটা কেমন মরে যায়, কিছুদিনের ভেতর লক্ষ্যটি তারা বেমালুম ভুলে বসে থাকে। এজন্যই শেখা আর হয়ে ওঠে না কোনদিন। সপ্তাহে একদিন দশ ঘন্টা শেখার চেয়ে প্রতিদিন দশ মিনিট করে সময় দাও, দেখবে ফাটাফাটি উন্নতি হচ্ছে শেখায়! স্মার্টফোনে আজকাল অসাধারণ সব অ্যাপ আছে, অবসরে ফেসবুকে ঘুরাঘুরি কমিয়ে এগুলো একটু ঘেঁটে দেখার অভ্যাস করলে তরতর করে এগিয়ে যাবে অনেকদূর, গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি।

৮) প্রতিদিন ইংরেজি পত্রিকা এবং খবর দেখুনঃ একজন সচেতন মানুষ হিসেবে আমাদের চারদিকে কি হচ্ছে বা ঘটে যাচ্ছে সেটার খবর রাখা আমাদের দায়িত্ব। আমরা হয়ত অনেকেই সেই খবর রাখি। তবে এখন থেকে সেই খবর আমরা ইংরেজিতে পড়ব বা দেখব। এগুলো আপনার ইংরেজি শিক্ষাকে সাহায্য করবে। বিভিন্ন ইংলিশ নিউজপেপার রযেছে যেমনঃ- The Daily star, BBC, bdnews24. এসব অনলাইন নিউজপেপার এ ভিজিট করেও আপনার পছন্দ মত একটি বিষয় আপনি বেছে নিতে পারেন।

৯) আপনার ইংরেজি সঠিক হচ্ছে কিনা সেটা মাথা থেকে সরিয়ে নিনঃ আমরা আমাদের স্কুল, কলেজ এবং ইউনিভাসির্টিতে সবসময় সঠিক ইংরেজি শিখে আসছি। যেমন আমরা আমাদের পরীক্ষার খাতায় যখন ইংরেজি লিখি তখন সঠিক ইংরেজিটা শিখেই লিখি। তাই আমাদের মনে একটা বধ্যমূল ধারণা তৈরি হয়ে গিয়েছে যে, ইংরেজি মানেই সঠিকভাবে বলতে হবে। অথচ আমরা আমাদের বাংলার বেলায় অনেক সময় বাক্যগঠনে ভুল করে থাকি। ইংরেজি মানেই যে একশ ভাগ সঠিক হতে হবে তা না। হ্যা, এটা সত্য যে, আমরা যখন ইংরেজি লিখি সেটা সঠিক হওয়া জরুরী। কিন্তু আমরা যখন ইংরেজিতে কথা বলি সেখানে ভুল করাটা এমন কোন মারাত্বক অপরাধ নয়। ইংরেজি যেহতেু আমাদের মাতৃভাষা নয়, বিদেশি একটা ভাষা। সেটা বলার ক্ষেত্রে আমাদের সঠিক ইংরেজি হচ্ছে কিনা চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। বরং ভুল ইংরেজি হওয়াটাই দরকার যেন আমরা সঠিক ইংরেজিটা শিখে নিতে পারি। প্রথম পথম আপনি যদি ভুল ইংরেজি বলার ভয়ে ইংরেজিতে কথা বলার চেষ্ট না করেন তাহলে আপনার কখনই ইংরেজিতে দ্রুত কথা বলা হবেনা। এমন কি ভুল ইংরেজি বলাতে আপনার লজ্জিত হওয়ারও কোন কারণ নেই। ইংরেজি যাদের দ্বিতীয় ভাষা তারা সবাই একশ ভাগ সঠিক ইংরেজি বলতে পারেনা। ইংরেজি কথা বলার সময় সেই ইংরেজি ভুল হচ্ছে নাকি সঠিক হচ্ছে সেটার চিন্তা করা যাবেন।

১০) ভেঙ্গে ভেঙ্গে ইংরেজি বাক্য গঠন করুনঃ আপনাকে যদি একটি বাড়ি বানানোর কাজ দেওয়া হয় যেখানে বাড়ি বানানো সম্পর্কে আপনার আগের কোন ধারণাই নেই। তাহলে একটি বাড়ি বানানো আপনার পক্ষে অসম্ভব। যদি এমন হয় যে, আপনাকে রেডি করা দেওয়াল দেওয়া হল, ছাদ দেওয়া হল, দরজা দেওয়া হল আর আপনি সেগুলো আস্তে আস্তে একটার সাথে একটা যোগ করে বাড়ি বানিয়ে ফেললেন। সেটা অনেকটা সহজ হবেনা? ইংরেজিতে ও যদি আমরা এভাবে চিন্তা করি তাহলে দ্রুত ইংরেজি বলটা সহজ হয়ে যাবে। ধরুন আপনি একটা ইংরেজি বাক্য তৈরি করলেন সেখান থেকে দু একটা শব্দ তুলে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন শব্দ বসিয়ে দিলেন।

১১) দ্রুত এবং আওয়াজ করে ইংরেজি পড়ুনঃ আপনি যখন কোন ইংরেজি বই বা ম্যাগাজিন পড়বেন তখন দ্রুত এবং আওয়াজ করে পড়ার চেষ্টা করুন। আপনার জিভ, ঠোট, মুখ এগুলোকেও দ্রুত ইংরেজি বলতে অভ্যস্ত করে তুলুন।
ত আপনার করতে হবে কি, এক পৃষ্টার একটা ইংরেজি প্যারাগ্রাফ নিন এবং সেটা পড়ুন। এর সাথে একটা ঘড়ি যুক্ত করুন যাতে বুঝা যায় পুরো প্যারাগ্রাফটা পড়তে আপনার কতক্ষণ সময় লাগে। এরপর আবার পড়তে থাকুন একি পদ্ধতিতে। বারবার পড়তে থাকুন আর ঘড়িতে সময় দেখুন। দেখবেন একি প্যারাগ্রাফ আপনি প্রথমবারে চেয়ে কম সময়ে পড়তে পেরেছেন। এরকম করে দেখবেন ৫ম ৬ষ্ট বারে আপনার প্রথমবারের চেয়ে অনেক কম সময়ে একি প্যারাগ্রাফ পড়ে শেষ করতে পারবেন।

১২) ইংরেজি কপি করুনঃ আপনি কারো মুখে ইংরেজি শোনলে এবং কোন মুভি বা কোন বই পড়ার সময় একটা বাক্য যদি আপনার ভাল লাগে বা মনে হয় বাক্যটি আপনি আপনার দৈনন্দিন কাজে ব্যবাহার করতে পারবেন। তাহলে সেই বাক্য বারবার পড়ুন। নয়ত কোথায় নোট করে রাখুন। বাক্যটি মাথায় সেট করে ফেলুন। দেখবেন কারো সাথে সেই বাক্য বলার প্রয়োজন হলে স্বাভাবিকভাবেই বাক্যটি আপনার মুখে চলে আসবে। সেই বাক্যের জন্য আপনাকে ভাবতে হবেনা।

১৩) হাল ছাড়া যাবে নাঃ আপনি বাংলা ভাষা কিন্তু ২ বা ৩ মাসে শিখেন নি। প্রায় ৩ বছর পর্যন্ত শুধু মানুষের কথা শুনেছেন। তারপর একটু করে বলতে শিখেছেন। মাম মাম বা পানি পানি বলতেন কিন্তু ধীরে ধীরে সেটা পানি খাবো পর্যন্ত এসেছে। এখন হয়তো আপনি সাহিত্যর রঙ লাগিয়ে পানি চাইতে পারেন। এটা কিন্তু হতে সময় লেগেছে। ইংরেজির ক্ষেত্রেও তাই।

বিশ্বতে প্রযুক্তিগত ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিক থেকে আমেরিকা অনেক এগিয়ে আছে। আমেরিকার প্রতিটি ক্ষেত্রে ইংরেজির ব্যবহার করা হয়। তাদের ছোট থেকে বড় সকল স্থানে শুধু ইংরেজির ব্যবহার। পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই ইংরেজি ভাষার প্রচলন রয়েছে। গ্রেট ব্রিটেন এর প্রস্তাবে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, কানাডা, আফ্রিকার কিছু অংশ, ইন্ডিয়া ও বিভিন্ন ছোট ছোট দেশের ভাষা ইংরেজি করা হয়েছে। এছাড়া জার্মানি, নরওয়ে, সুইডেন, ডেনমার্ক এবং নেদারল্যান্ড এ ইংরেজিকে দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে গ্রহন করা হয়েছে। ইংরেজির কারনে এইসব দেশের লোকের সংস্কৃতি এখন আমাদের সামনে তুলে ধরতে পারছে। ইংরেজি শিখার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কারন হল বিজ্ঞান শেখা। বিজ্ঞান শিখতে হলে অবশ্যই ইংরেজি জানা জরুরি। বিজ্ঞানের সকল সীমা ইংরেজির উপর নির্ভরশীল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইংরেজি ভাষা জানলে আপনার রং, বর্ণ ও জাতিগত কোন তফাৎ তারা দেখবেনা। আপনার জন্য সেখানে সুযোগের অভাব হবে না। আপনি আপনার কাজে জ্ঞানী কিন্তু সেটা শুধুমাত্র আপনার জানা ভাষাতেই, কিন্তু কর্মক্ষেত্রে নিজের মাতৃভাষার পাশাপাশি দক্ষতা প্রয়োজন কর্মক্ষেত্রেও, আপনি যদি যথাযথ ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন, লিখতে পারেন, বুঝতে পারেন তাহলে কর্মক্ষেত্রেও একাধিক কাজের সুযোগ খুলে যাবে আপনার কাছে। হার্ভার্ড, ইয়েল, প্রিন্সটন, ক্যামব্রিজ বা অক্সফোর্ডে আবেদনের কথা ভেবেছেন। যদি আপনি বিশ্বের নামকরা এইসব বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে কোর্স করতে চান তাহলে আপনাকে ইংরাজি ভাষা রপ্ত করতে হবে।  

যাই করতে যাবেন ইংরেজি আপনাকে শিখতেই হবে । তবে সর্বশেষে বলতে চাই ইংরেজি শব্দার্থ জানতেই হবে নয়তবা ইংরেজি শিখা সম্ভব নয়।

Post Related Things: কিভাবে ইংরেজি শিখব, ইংরেজি শেখার সেরা উপায়, কিভাবে ইংরেজি শেখা যায়, ইংরেজি শিখার সহজ উপায়, ইংরেজি গ্রামার কিভাবে শিখব, ইংরেজি শেখার গুরুত্ব, ইংরেজি শিখার সহজ উপায়, ইংরেজি শেখার অ্যাপস্

আরো পড়ুন:

ওয়ার্ডপ্রেস কি ? ওয়ার্ডপ্রেস কেন শিখবেন ?

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার হওয়া যায় ?

ওয়েব ডিজাইন কি ? ওয়েব ডিজাইন ক্যারিয়ার

চাকরির ইন্টারভিউতে যে ১৮টি ভুল করবেন না !

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি ? গ্রাফিক্স ডিজাইন পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কি ? সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কেন পড়ব !

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি ? ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কীভাবে শিখব ?

প্রতিদিনের নিত্যনতুন চাকরির খবর যেমন, আজকের চাকরির খবর ২০২১, সাপ্তাহিক চাকরির খবর, all govt job circular, government jobs circular 2021, bd jobs circular, bd govt jobs, bd govt job circular, bd job today, all jobs bd newspaper, government jobs in BD, ngo job circular, bd job news bangla, chakrir khobor, bd govt chakrir khobor, job circular in Bangladesh, সাম্প্রতিক কালের সকল সরকারি-বেসরকারি চাকরির খবর পেতে আমাদের সাইটটি প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন।

Latest Published